মডেল লরেনের মৃত্যু নিয়ে পুলিশের ভাষ্য

বিনোদন ডেস্ক : শুরু থেকেই একটু একটু করে নিজেকে প্রস্তুত করে তুলছিলেন। অনেকেই ধারণা করছিলেন, একদিন দারুণ কিছু করবে এই ইন্ডাস্ট্রিতে। কিন্তু সবাইকে ভুলের মধ্যে রেখে অভিমানে গলায় ফাঁস দেন তিনি। আর এখানেই ক্যারিয়ারের ফুল ফোটার আগে নিভে গেলো তরুণ মডেল ও অভিনেত্রী লরেন মেন্ডেস নামের আলোটি।

রোববার সকাল ৭টায় বারিধারার কালাচাঁদপুরের নিজের বাসায় এ ঘটনা ঘটে। জানা গেছে, বাবা-মার প্রতি অভিমান করেই আত্মহত্যা করেন এ অভিনেত্রী। এ তরুণীর মৃত্যু হতবাক করে দেয় দেশীয় শোবিজ অঙ্গনকে। অনেকেই মেনে নিতে পারছেন না যে, এতটুকুন পিচ্চি একটা মেয়ে এমন কাজ করতে পারে। কে জানতো, এই বয়সেই তার ভিতরে কিসের অভিমান ছিলো, যা কারও সাথেই শেয়ার করা গেলো না! সেসব প্রশ্নের উত্তর এখনও অজানা।

এই বিষয়ে গুলশান থানার ওসি এস এম কামরুজ্জামান জানান, খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে। এরপর ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের মর্গে পাঠানো হয়েছে। গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছেন তিনি। কিন্তু কী কারণে আত্মহত্যা করেছেন, তা আমরা এখনো জানতে পারিনি। তবে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, পারিবারিক মনোমালিন্যের কারণে এমনটা হতে পারে। তদন্ত করার পরই এ বিষয়ে আমরা বিস্তারিত জানাতে পারব।

লরেনের পরিবারের বরাত দিয়ে গুলশান থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আমিনুল ইসলাম গণমাধ্যমকে জানান, রবিবার সকাল ৭টার দিকে নিজ ঘরের সিলিং ফ্যানের সাথে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন। এসময় তার মা বাসার বাইরে ছিলেন। ঝুলন্ত অবস্থা থেকে লাশটি নামান তার বাবা। খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

তিনি আরও জানান, লরেন মেন্ডেস খুব স্বাধীনচেতা ছিলেন । যখন-তখন বাড়ির বাইরে যেতেন। এ নিয়ে বাবা-মায়ের সাথে কথা কাটাকাটি হতো প্রায়ই। সে সূত্রধরেই আত্মহত্যার পথ বেছে নেন তিনি। ‘ইন্টারনেট শেষ হলেও, নো টেনশন’ এয়ারটেলের বিজ্ঞাপনে ব্যবহৃত এই সংলাপটি দিয়ে আলোচনায় আসেন লরেন।

পুরো নাম লরেন মেন্ডেস, ধর্মে খ্রিষ্টান। ক্যারিয়ারের শুরুটা মডেলিং দিয়ে হলেও পরিচিতি পেয়েছেন বিজ্ঞাপন দিয়ে। শুরুর দিকে এয়ারটেলের বেশ কিছু ফটোশুটে অংশ নেন। এরপর টানা এয়ারটেলের কয়েকটি বিজ্ঞাপনে কাজ করে আলোচনায় চলে আসেন তিনি। বিজ্ঞাপন ছাড়াও তাকে দেখা গিয়েছে মিউজিক ভিডিওতে। ‘ঘোর’ শিরোনামে তপু খান ও কণার একটি দ্বৈত গানের ভিডিওতে মডেল হিসেবে হাজির হন তিনি। প্রেক্ষাগৃহের ব্যানারে নির্মিত এই ভিডিওতে তার সাবলীল অভিনয় নজর কেড়েছে সবার।

এছাড়াও ‘তোমার পিছু ছাড়বো না’ শিরোনামের একটি গানের মডেল হয়ে বেশ আলোচনায় আসেন। এরপর তাকে দেখা গিয়েছে স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‌‘অমর প্রেম’ এ। এদিকে প্রকাশ পেয়েছে তার প্রাণ লেয়ারের বিজ্ঞাপনটিও। সর্বশেষ লরেন শুটিংয়ে অংশ নিয়েছিলেন সঞ্জয় সমদ্দার পরিচালিত ‘ট্রল’ নাটকের শুটিংয়ে। গত বুধবার ২৬ আগস্ট অপূর্ব ও তাসনিয়া ফারিনের সঙ্গে নাটকটির শুটিং করেছিলেন।সঙ্গে এসেছিলেন তাঁর মা ও ছোট দুই বোন। নাটকের গল্পে তিনি ছিলেন অপূর্বের ছোট বোন। সেখানে বেশ শান্ত দেখা গিয়েছিল লরেনকে।