রোনালদোর ১০০তম গোলে পর্তুগাল জয়ী

স্পোর্টস ডেস্ক : জাতীয় দলের হয়ে নতুন এক মাইলফক স্পর্শ করলেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। সুইডেনের বিপক্ষে গোল করে ইতিহাসের দ্বিতীয় খেলোয়াড় হিসেবে আন্তর্জাতিক ফুটবলে গোলের সেঞ্চুরি পূরণ করলেন পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড। শিরোপা ধরে রাখার মিশনে ক্রোয়েশিয়ার পর সুইডেনকে হারিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে উঠে গেল পর্তুগাল। মঙ্গলবার রাতে ‘এ’ লিগের ৩ নম্বর গ্রুপের ম্যাচে সুইডেনকে ২-০ গোলে হারিয়েছে প্রতিযোগিতার প্রথম আসরের চ্যাম্পিয়নরা।

দলের হয়ে জোড়া গোল করেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। দলের হয়ে ও ইতিহাসের দ্বিতীয় ফুটবলার হিসেবে শততম গোল করেন তিনি। ১৬৫ ম্যাচ খেলে এই কীর্তি গড়েন রোনালদো। ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধের প্রায় পুরোটা সময়ই ১০ জনের দল নিয়ে খেলেছে সুইডিশরা। পর্তুগালের প্রথমার্ধের পারফরম্যান্স অতটা আহামরি ভাল ছিল না। তবে, দ্বিতীয়ার্ধে স্বরূপে ফেরা দলটির সামনে কোনো বাধাই দাড় করাতে পারেনি সুইডেন। তবে ২০তম মিনিটে এগিয়ে যেতে পারতো তারা কিন্তু ডান দিক থেকে ব্রুনো ফের্নান্দেসের দারুণ বাকানো ক্রসে গোলমুখে বলে পা লাগাতেই পারেননি পেপে।

পাচ মিনিট পর কর্নারে রোনালদোর নিচু শট দারুণ ক্ষিপ্রতায় পা দিয়ে ঠেকান গোলরক্ষক রবিন ওলসেন। ৪০তম মিনিটে ওলসেনের দৃঢ়তায় অপেক্ষা বাড়ে আন্তর্জাতিক ফুটবলে শততম গোলের পথে থাকা রোনালদোর। ফের্নান্দেসের থ্রু বল ধরে ডি-বক্সে ঢুকে জোরালো শট নেন তিনি, দারুণ নৈপুণ্যে কর্নারের বিনিময়ে ঠেকান গোলরক্ষক। এদিকে পাচ মিনিট পরই জাতীয় দলের হয়ে গোলের সেঞ্চুরি পূরণ করেন পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার। প্রায় ২৫ গজ দূর থেকে রক্ষণ প্রাচীরের ওপর দিয়ে দুর্দান্ত বাঁকানো ফ্রি-কিকে ঠিকানা খুঁজে নেন তিনি।

ইরানের সাবেক স্ট্রাইকার আলি দাই ১০৯টি করে শুধুমাত্র রোনালদোর ওপরে রয়েছেন। তবে অতি শিগগিরই হয়তো এই রেকর্ডের একক মালিক হবেন রোনালদো। গোল হজমের আগেই বড় ধাক্কা খায় স্বাগতিকরা। জোয়াও মোতিনিয়োকে বাজেভাবে ফাউল করে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন মিডফিল্ডার গুস্তাভ সভেনসন। ওই ফ্রি-কিক থেকে দলকে এগিয়ে নেন রোনালদো। ৬১তম মিনিটে একটুর জন্য ব্যবধান দ্বিগুণ হয়নি। রাফায়েল গেররেরোর ক্রসে ফের্নান্দেসের ভলি ক্রসবারে লাগে। ব্যবধান দ্বিগুণ হতে অবশ্য খুব বেশি দেরিও হয়নি।

৭২তম মিনিটে রোনালদোর আরেকটি চমৎকার গোলে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয় সফরকারীরা। জোয়াও ফেলিক্সের পাস ধরে ডি-বক্সের মুখ থেকে জোরালো কোনাকুনি শটে দূরের পোস্ট দিয়ে বল জালে জড়ান ইউভেন্তুস তারকা। শেষ দিকে ব্যবধান আরও বাড়তে পারতো। দারুণ দুটি সুযোগ পেয়েছিলেন তরুণ ফরোয়ার্ড ফেলিক্স, কিন্তু কাজে লাগাতে পারেননি তিনি। প্রথমবার গোলমুখে ঠিকমতো বলে পা লাগাতে পারেননি তিনি আর তার দ্বিতীয় প্রচেষ্টা ঝাঁপিয়ে ঠেকান ওলসেন। একই সময়ে শুরু হওয়া গ্রুপের আরেক ম্যাচে ঘরের মাঠে ক্রোয়েশিয়াকে ৪-২ গোলে হারিয়েছে ফ্রান্স। এই গ্রুপে সমান ৬ পয়েন্ট করে অর্জন করেছে পর্তুগাল ও ফ্রান্সের। তবে গোল ব্যবধানে এগিয়ে শীর্ষে আছে ২০১৬ ইউরো চ্যাম্পিয়ন পর্তুগিজরাই। একই গ্রুপের সুইডেন ও ক্রোয়েশিয়া এখন পর্যন্ত কোনো পয়েন্ট পায়নি।